অধ্যক্ষের বাণী

জন্মগতভাবেই প্রতিটি শিশুর মধ্যে প্রতিভা সুপ্তাবস্থায় থাকে।শিক্ষার মাধ্যমে এই প্রতিভার বিকাশ ঘটে। আর এ ধরণের শিক্ষা সুনিশ্চিত করার জন্য প্রয়োজন ভালো ও মানসম্মত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের।এ লক্ষ্যকে সামনে রেখেই বাংলাদেশের নারী শিক্ষার অন্যতম পথিকৃত ড. কাজী আনোয়ারা মনসুর ১৯৫৭ সালে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন ‘আজিমপুর কিন্ডার গার্ডেন’।যা পরবর্তীতে অগ্রণী স্কুল এন্ড কলেজ নামে বাংলাদেশের একটি অন্যতম শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়। এরই ধারাবাহিকতায় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যেকে সামনে রেখে এখানেও চালু করা হয়েছে ডিজিটাল শিক্ষা প্রদ্ধতি। প্রতিটি শ্রেণি কক্ষে পর্যায়ক্রমে ইন্টারনেট ও মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর স্থাপন করার কাজ অব্যাহত আছে। যার ফলে শিখন-শেখানো কার্যক্রম হচ্ছে আনন্দজনক। একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করার জন্য আমাদের এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠিানকে আমরা বিশ্বমানের একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরিণত করতে চাই। আর এ জন্য দরকার সকলের সহযোগিতা। আমি আশা করি নিষ্ঠাবান শিক্ষকের ত্যাগ, সচেতন অভিভাবকদের সহযোগিতা ও সুদক্ষ গভনিং বডির সঠিক দিক নির্দেশনায় অগ্রণী স্কুল এন্ড কলেজ তার অভীষ্ট লক্ষে পৌছবে ইনশাআল্লাহ।

মোঃ রেজাউজ্জামান ভূইঁয়া

অধ্যক্ষ
অগ্রণী স্কুল এন্ড কলেজ